এইমাত্র পাওয়াঃ প্রথম থেকে তৃতীয় শ্রেণি পর্যন্ত থাকছে না পরীক্ষা

জাতীয়

দেশের শিক্ষানীতিতে বড় ধরনের পরিবর্তন আসছে এমন কথা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জানিয়েছেছিলেন এক বছর আগেই। মূলত ক্ষুদে শিক্ষার্থীদের পড়ালেখার চাপ থেকে মুক্ত করতেই প্রাথমিকে পরীক্ষা পদ্ধতি বাতিলের কথা জানিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী। নির্দেশনা অনুযায়ী দেশের প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় কাজও চালিয়ে যাচ্ছিল পুরোদমে। তবে এরই মধ্যে হানা দিয়েছে মহামারী কোভিড-১৯ ভাইরাস। মহামারী এই ভাইরাসের কারনে দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান সহ দীর্ঘ সময় বন্ধ ছিল সরকারী অফিসগুলোও। ফলে ব্যাঘাত ঘটেছে নতুন শিক্ষানীতি প্রণয়নে।

প্রথম থেকে তৃতীয় শ্রেণি পর্যন্ত পরীক্ষা পদ্ধতি বাতিল করার এই প্রক্রিয়ায় ২০২১ সাল থেকেই পরীক্ষা বাতিলের কথা থাকলেও তা আর হচ্ছে না। ফলে ২০২১ সালে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হলেও ২০২২ শিক্ষাবর্ষ থেকে তৃতীয় শ্রেণি পর্যন্ত হবে না কোনো পরীক্ষা। ক্লাসের মাধ্যমেই মূল্যায়ন করা হবে এই ক্ষুদে শিক্ষার্থীদেরকে।প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক ফসিউল্লাহ পরীক্ষা বাতিলের ব্যাপারে নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, ‘’২০২১ সাল থেকে এটি কার্যকর করার কথা থাকলেও চলমান মহামারি করোনা ভাইরাস পরিস্থিতির কারণে সেটি সম্ভব হচ্ছে না। তবে ২০২২ সাল থেকে এই প্রক্রিয়া পুরোদমে কার্যকর হবে।‘’

পরীক্ষামূলকভাবে ইতোমধ্যে দেশের ১০০ প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রথম থেকে তৃতীয় শ্রেণি পর্যন্ত পরীক্ষা বাতিল করা হয়েছে বলেও জানিয়েছেন মহাপরিচালক। তার ভাষ্য, ‘’প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণি পর্যন্ত পরীক্ষা তুলে দিয়ে ক্লাস মূল্যায়ন করে উত্তীর্ণ করার সিদ্ধান্ত হয়েছে। এজন্য বিভিন্ন জেলার ১শ বিদ্যালয়ে পরীক্ষামূলকভাবে এ পদ্ধতি চালুও করা হয়েছে।‘’এর আগে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে ঘোষণা দেয়া হয়েছিল ২০২১ সাল থেকেই নতুন শিক্ষানীতি প্রণয়ন করা হবে।

তবে করোনা ভাইরাসের কারনে নতুন পাঠ্যক্রম অনুসারে বই ছাপাতে পারছে না এনসিটিবি। ফলে এক বছর পিছিয়ে ২০২২ সাল থেকেই কার্যকর হতে পারে প্রাথমিকের নতুন শিক্ষানীতি। এছাড়া মাধ্যমিক পর্যায়ে কারিগরি বিষয় যুক্ত হতে পারে এমন আভাসও দেয়া হয়েছে শিক্ষামন্ত্রীর পক্ষ থেকে।

অন্যদিকে চলতি বছরে বাতিল করা হয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনি সমমানের সকল পরীক্ষা। পাশাপাশি বাতিল করা হয়েছে জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট সমমানের সকল পরীক্ষাও। পিইসি এবং জেসএসি পরীক্ষা বাতিল করা হলেও এইচএসি পরীক্ষা নিয়ে এখনও কোন সিদ্ধান্ত জানায়নি শিক্ষা মন্ত্রণালয়।মহামারী করোনা ভাইরাসের কারনে দেশের শিক্ষার্থীদের সুরক্ষার কথা মাথায় রেখেই গত মার্চ মাস থেকে বন্ধ রয়েছে দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। সব শেষ বর্ধিত হওয়া ছুটি অনুযায়ী অক্টোবরের ৩ তারিখ পর্যন্ত দেশের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে। তবে এরপরও ছুটি বাড়বে কিনা সে ব্যাপারে এখনও কিছুই জানা যায়নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *