এক হাজার ৪৫০ টন ইলিশ যাবে ভারতে

জাতীয়

আসন্ন দুর্গাপূজায় শুভেচ্ছা হিসেবে এবার ১ হাজার ৪৫০ টন ইলিশ মাছ ভারতে রফতানি হচ্ছে বলে জানা গেছে। ইতোমধ্যে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় থেকে সমপরিমাণ ইলিশ রফতানির জন্য ৯টি দেশি প্রতিষ্ঠানকে অনুমতি দেওয়া হয়েছে। গত বছরও সরকার শারদীয় শুভেচ্ছা হিসেবে ভারতে ৫০০ টন ইলিশ রফতানির অনুমতি দিয়েছিল। বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

সূত্র জানিয়েছে, প্রতিকেজি ইলিশ ৮০০ টাকা দরে ভারতে রফতানি হবে বলে সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করেছে সরকার। এই দরে রফতানি করা প্রতিটি ইলিশের সাইজ হবে ১০০০ (এক কেজি) থেকে ১২০০ গ্রাম (এক কেজি ২০০ গ্রাম) ওজনের।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, এ বছর ভারতে ইলিশ রফতানির জন্য ২০০টি প্রতিষ্ঠান থেকে আবেদন জমা পড়েছিল। যাচাই-বাছাই করে ৯টি প্রতিষ্ঠানকে ভারতে ইলিশ রফতানির জন্য চূড়ান্ত করেছে। এসব প্রতিষ্ঠান অধিক পরিমাণে ইলিশ স্থলপথে, বিশেষ করে বেনাপোল স্থলবন্দর ব্যবহার করে রফতানি করবে বলে জানা গেছে। তবে রফতানিকারক প্রতিষ্ঠান অন্য যেকোনও স্থলবন্দরও ব্যবহার করতে পারবেন।

আরও পড়ুন= ফ্রেঞ্চ লিগ ওয়ানে নিজেদের প্রথম ম্যাচেই হেরে বসে নেইমার-এমবাপে, ডি মারিয়াবিহীন পিএসজি। এরপর দ্বিতীয় ম্যাচেই শক্তিশালী মার্শেইয়ের বিপক্ষে মাঠে নামে নেইমার-ডি মারিয়াকে নিয়ে। তবে ঘরের মাঠ পার্ক ডে প্রিন্সে মার্শেইয়ের কাছে ১-০ গোলে হেরে বসেছে বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। ম্যাচের শেষ দিকেদুই দলের খেলোয়াড়রা হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়ায় পাঁচ খেলোয়াড়কে লাল কার্ড দেখিয়ে পরিস্থিত শান্ত করেন রেফারি। এর মধ্যে নেইমার জুনিয়রসহ পিএসজির হয়ে লাল কার্ড দেখেছেন আরও দুই খেলোয়াড়। আর মার্শেইয়ের দুই খেলোয়াড় লাল কার্ড দেখেছেন।

ফ্রেঞ্চ ক্লাসিকোতে টানা ২১ ম্যাচ পর পিএসজিকে হারাল মার্শেই। আর এর মধ্য দিয়ে ১৯৮৪/৮৫ মৌসুমের পর প্রথমবারের মতো মৌসুমের প্রথম দুই ম্যাচেই হারের স্বাদ পেল প্যারিস সেইন্ট জার্মেই। মৌসুমের প্রথম দুই ম্যাচেই হেরে লিগ টেবলের ১৮ নম্বরে অবস্থান করেছে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন পিএসজি। করোনাভাইরাস থেকে সেরে উঠে সদ্যই দলের সঙ্গে অনুশীলনে যোগ দেন নেইমার জুনিয়র এবং অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া। দলের প্রথম ম্যাচে হারের পর আর বেশি বিশ্রামে সময় কাটাননি এই তারকারা।

তবে তারা মাঠে ফিরেও দলকে জয়ের ধারায় ফেরাতে পারল না। লিগ ওয়ানে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচেও হারতে হয়েছে ২০১৯/২০ মৌসুমের চ্যাম্পিয়নয়দের। ২০২০/২১ নতুন মৌসুমের শুরুতে দলের প্রধান খেলোয়াড়রা করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আইসোলেশনে চলে যায় পিএসজির। প্রথম অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া, লিওনার্দো পারদেস এরপর একে একে কেইলর নাভাস, নেইমার জুনিয়র এবং সর্বশেষ কিলিয়ান এমবাপেও করোনায় আক্রান্ত হন। এর মধ্যে নেইমার, ডি মারিয়া এবং লিওনার্দো পারদেস সুস্থ হয়ে দলে যোগ দিলেও এখনও দলের বাইরেই আছেন কেইলর নাভাস এবং কিলিয়ান এমবাপে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *