এবার চালু হল যে নতুন আইন, সাবধান কাতার প্রবাসীরা

জাতীয়

কাতারে ৮ জনকে আটক করা হয়েছে করোনার কোয়ারেইন্টেন না মানায় । তারা কাতারের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় কর্তৃপক্ষের পদ্ধতি অনুসারে আইনিগতভাবে দায়বদ্ধ বলে অনুসরণ করার প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হয়েছিল।জানা গেছে, কাতারের জননিরাপত্তা অর্জনের বিষয়টি নিশ্চিত করার জন্য ও কোভিড-১৯ নিয়ন্ত্রণের লক্ষ্যে জনস্বাস্থ্য মন্ত্রনালয়ের প্রতিনিধিত্ব করা স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষের দ্বারা অনুমোদিত, দেশে কার্যকর হওয়া সতর্কতামূলক পদক্ষেপের বাস্তবায়ন হচ্ছে।

আটককৃত ৮ জন ব্যাক্তি হলেনঃ১.মনসুর হাদি হাজাজ আল শাহওয়ানি আল হাজরী ২.আহমেদ আবদুলাজিজ মুহাম্মদ আবদুল্লাহ মারাফীহ ৩.মুঙ্গার মান্নান ম ৪. ব্লিচ ফ্লাই ৫.জাম্বলি যুবা ৬.ফালেহ হাদী ফাহাদ আল শাহওয়ানী আল হাজরী ৭.মুহাম্মদ মোবারক মুহাম্মদ আল রাখিলা আল মারি ৮. আবদুল-রহমান সালেহ আলী আব্বাদ আল আজজি হোম কোয়ারেইন্টেন ভঙ্গকারীদের বর্তমানে মামলাতে প্রেরণ করা হচ্ছে। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ নাগরিকদের ও হোম কোয়ারানটিনের আওতাভুক্ত বাসিন্দাদের জনগণের সুরক্ষা

এবং অন্যের সুরক্ষা নিশ্চিত করার জন্য জনস্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের শর্তাদি সম্পর্কে সম্পূর্ণ প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানিয়েছিল।যে কেউ এই শর্তগুলি লঙ্ঘন করে তাকে ২০১৪ এর দণ্ডবিধি নং (১১) এর অনুচ্ছেদ (২৫৩), এবং সংক্রামক রোগ প্রতিরোধ সম্পর্কিত ১৯৯০ সালের আইন নং (১৭) এর বিধান অনুসারে নির্ধারিত জরিমানার সাপেক্ষে, এবং আইন সুরক্ষা সম্পর্কিত ২০০২ সালের আইন (১৭)।

আরও পড়ুন=পরিবেশবান্ধব বাহন হিসেবে সাইকেল পৃথিবীজুড়েই জনপ্রিয়। একইসঙ্গে এটি স্বাস্থ্যসম্মত ও খরচ সাশ্রয়ী হওয়ায় তরুণ-তরুণীরা ঝুঁকছে সাইক্লিংয়ে।করোনাকালে গণপরিবহনে চলাচলের ঝুঁকি এড়াতে এবং সময় ও খরচ বাঁচাতে অনেকেই বেছে নিয়েছেন পছন্দের সাইকেল। পাশাপাশি শারীরিক ব্যায়াম ও পরিবেশের স্বার্থে সাইকেলের জুড়ি নেই।অবশ্য নগরে স্বাস্থ্যসচেতন অনেকেই যাতায়াতে নিয়মিত ব্যবহার করছেন সাইকেল। উদ্যমী, তরুণ কিছু যুবক মিলে গড়ে তুলেছেন বিভিন্ন সাইক্লিং গ্রুপ ও সংগঠন।

উঠতি বয়সীদের মধ্যে সাইকেল নিয়ে বাড়তি আগ্রহ লক্ষ্য করা যায়। এমন শিশু খুব কমই পাওয়া যাবে, যাদের শৈশব সাইকেলের সঙ্গে কাটেনি। বাংলাদেশ বর্তমানে বিশ্বের অন্যতম প্রধান বাইসাইকেল প্রস্তুতকারক। দেশের অনেক কোম্পানির পণ্যের গুণগত মান বিশ্বমানের। এসব কোম্পানিগুলো বিভিন্ন মডেলের বাইসাইকেল আমদানি ও রপ্তানি করছে।নগরের সাইকেল বাজার নিউমার্কেটের বিপরীতে সদরঘাট রোডে। এখানে রয়েছে ছোট-বড় অনেকগুলো দোকান।

এসব দোকান থেকে সাধ এবং সাধ্যের মধ্যে চাহিদামতো কিনে নেওয়া যায় সব বয়সীদের সাইকেল। ব্রান্ডের সাইকেলও পাওয়া যাবে প্রায় সব দোকানেই। সদরঘাটের এই সাইকেল বাজারের সাইকেল ওয়ার্ল্ড, বাঁশরী সাইকেল গার্ডেন, সানমুন, গোস্ট রাইডার, আর কে সাইকেল মার্ট, সাইকেল সেন্টার, বাইক জোন, দি এক্সক্লুসিভ সাইকেল ডট কম, সাইকেল লাইফ, মোস্তফা সাইকেল, বাইক জোন ও লিজেন্ড বাইকস অন্যতম।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *