ওসি প্রদীপ ও মর্জিনাকে নিয়ে জানা গেলো নতুন তথ্য

জাতীয়

চলতি বছরের ২২ জুলাই রাতে উ`খিয়ার কুতুপালং গ্রামের বাসিন্দা ইউপি সদস্য ব`খতিয়ার আহমেদের বাড়িতে টে`কনাফ থানার ওসি প্র`দীপ কুমার দাশ ও উখিয়া থানার ওসি মর্জিনা আক্তারের নেতৃত্বে অ`ভিযানে যায় একদল পু`লিশ সদস্য।অ`ভিনব কায়দায় বাসা থেকে ডেকে নিয়ে ক্র`সফায়ার দেওয়া হয় ই`উপি স`দস্য ব`খতিরাকে।

বখতিয়ার ভাই, একটু বের হবেন? একজন মানুষকে শ`নাক্ত করতে হবে, আপনি চেনেন কি না।গত ২২ জুলাই গ`ভীর রাতে এ`ভাবেই বা`সার বাইরে ডেকে নেয়া হয় ক`ক্সবাজারের কুতুপালং ই`উনিয়নের ৯ নম্বর ওয়া`র্ডের তি`নবারের মেম্বার ব`খতিয়ার উদ্দিনকে। টে`কনাফ ও

উখিয়া পু`লিশের টি`মকে নেতৃত্ব দেন দুই ওসি প্র`দীপ কুমার দাশ ও ম`র্জিনা আক্তার।রাত ৩টার দিকে ব`খতিয়ার মেম্বারকে পু`লিশের গাড়িতে নিয়ে যাওয়া হয়।

প`রদিন দেনদরবার করেও জানা যায়নি কোথায় আছেন তিনি। বিকেলে খবর আসে টে`কনাফ থানায় রাখা হয়েছে তাকে।২৩ জুলাই রাত ৮টার ওসি প্র`দীপের নে`তৃত্বে পু`লিশ ফিরে আসে ঐ বাসায়। গাড়িতে রাখা হয় ব`খতিয়ারকে। বাসা থেকে নেয়া হয় নগদ ৫১ লাখ টাকা, ১০ ভরি স্ব`র্নালংকার, জমির দলিল, চেকবইসহ মূ`ল্যবান নানা কা`গজপত্র। এ সময় ঐ প`রিবারের নারী সদস্যদেরও `লাঞ্ছিত করেন পু`লিশ সদস্যরা।২৪ জুলাই ভোরে জানা যায়, পু`লিশের সঙ্গে ব`ন্দুকযু`দ্ধে মা`রা গেছেন দুজন।

একজন বখতিয়ার মেম্বার, আরেকজন মো. তাহের। এরপর উল্টো ব`খতিয়ারের তিন স`ন্তানের বি`রুদ্ধে মা`দক ও অ`স্ত্র আইনে মা`মলা ঠুকে দেয় `পু`লিশ।এসব অ`ভিযোগ ক্র`সফায়ারে নি`হত ব`খতিয়ার মে`ম্বারের বড় ছেলে বোরহান উদ্দিনের । তাদের কাছে পু`লিশের সেদিনের অ`ভিযানের সিসিটিভি ফু`টেজ আছে উল্লেখ করে বো`রহান জানান, এখন তারা পু`লিশের বি`রুদ্ধে মা`মলা করার প্র`স্তুতি নিচ্ছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *