ক`রোনার রোগীকে ধ-র্ষণ করল অ্যা-ম্বুলে-ন্স চা-লক!

জাতীয়

ভারতে করোনা সংক্রমণে একের পর এক রেকর্ড ভাঙ্গছে। করোনা মহামারিতে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে ভারতের বিভিন্ন রাজ্য। এর মধ্যেই নৃশংস এক ঘটনা ঘটেছে। করোনা আক্রান্ত এক তরুণীকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার সময় ধর্ষণ করেছেন এক অ্যাম্বুলেন্স চালক।বর্বর এই ঘটনা ঘটেছে ভারতের কেরালা রাজ্যে। পুলিশ জানিয়েছে, দু’জন রোগীকে ভিন্ন দু’টি হাসপাতালে নিয়ে যাচ্ছিল ওই অ্যাম্বুলেন্স চালক।

প্রথমে একজন বৃদ্ধাকে হাসপাতালে নিয়ে যায় সে। এরপর ওই তরণীকে নিয়ে হাসপাতালের পরিবর্তে একটি ফাঁকা মাঠে অ্যাম্বুলেন্স নিয়ে যায় ওই চালক।সেখানেই করোনা আক্রান্ত ওই তরুণীকে ধর্ষণ করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। ২৫ বছরের ওই অ্যাম্বুলেন্স চালককে ইতোমধ্যেই অ্যাম্বুলেন্স পরিষেবা থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। পুলিশ ওই চালককে গ্রেফতার করেছে। এই ঘটনার তীব্র নিন্দা করে কেরালার স্বাস্থ্যমন্ত্রী কে কে শালিজা পুলিশকে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন।তবে করোনা আক্রান্ত কোনো নারীকে যৌন হেনস্থার এটাই প্রথম ঘটনা নয়।

এর আগে গত জুলাই মাসে দিল্লিতে এক করোনা আক্রান্ত নারীকে ধর্ষণের অপরাধে দু’জনকে গ্রেফতার করেছিল পু`লিশ।আরও পড়ুনঃবিশ্বে একদিনে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত শনাক্তের সব রেকর্ড ভেঙে চুরমার করেছে ভারত। দেশটিতে গত ২৪ ঘণ্টায় প্রাণঘাতী এই ভাইরাসে নতুন করে প্রায় ৭৯ হাজার মানুষ আক্রান্ত এবং মারা গেছেন ৯৪৫ জন।করোনাভাইরাস মহামারিতে গত সাতদিন ধরে নজিরবিহীন সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে ভারতে। টাইমস অব ইন্ডিয়ার এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে,

শনিবার দেশটিতে ৭৮ হাজার ৯০৩ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন; যা বিশ্বের যেকোনও দেশে একদিনে সর্বোচ্চ সংক্রমণের রেকর্ড। এ নিয়ে দেশটিতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৩৫ লাখ ছাড়িয়েছে। দেশটিতে করোনায় অন্তত ৬৩ হাজার ৬৫৭ জনের প্রাণহানি ঘটেছে।এর আগে বিশ্বে একদিনে সর্বোচ্চ সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছিল গত ২৫ জুলাই যুক্তরাষ্ট্রে। করোনায় বিপর্যস্ত যুক্তরাষ্ট্রে ওইদিন ৭৮ হাজার ৪২৭ জনের সংক্রমণ শনাক্ত হয়।ভারতে গত সাত দিন ধরে করোনা সংক্রমণ আরও তীব্র হয়েছে; এই সময়ের মধ্যে দেশটিতে ৪ লাখ ৯৬ হাজার ৭০ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

একই সময়ে মোট সংক্রমণ ৩০ লাখ থেকে বেড়ে ৩৫ লাখ ছাড়িয়েছে। এতে দেখা গেছে, দেশটিতে গত সাতদিনে গড়ে দৈনিক ৭০ হাজার ৮৬৭ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।দৈনিক গড় আক্রান্তের সংখ্যায় ভারতের এই রেকর্ড বিশ্বের আর কোনও দেশেই দেখা যায়নি। এমনকি জুলাই মাসে যুক্তরাষ্ট্রে করোনার ভয়াবহ প্রকোপ দেখা গেলেও গড় আক্রান্ত ভারতের তুলনায় অনেক কম ছিল।করোনায় মৃত্যুর হিসেবে বিশ্বে যুক্তরাষ্ট্র, ব্রাজিল এবং মেক্সিকোর পর চতুর্থ স্থানে উঠে এসেছে ভারত।

বিশ্বে এখন পর্যন্ত করোনায় সবচেয়ে বেশি মানুষের প্রাণহানি ঘটেছে যুক্তরাষ্ট্রে; দেশটিতে মারা গেছেন ১ লাখ ৮৬ হাজার ৮৫৫ এবং আক্রান্ত হয়েছেন ৬১ লাখ ৩৯ হাজার ৭৮ জন।অন্যদিকে, ব্রাজিলে ১ লাখ ২০ হাজার ৪৯৮ এবং মেক্সিকোয় ৬৩ হাজার ৮১৯ জনের প্রাণ কেড়েছে করোনা। ভারতে এই সংখ্যা ৬৩ হাজার ৬৫৭।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *