কাতার থেকেও প্রবাসীদের লাশ ফ্রি নেবে না বিমান

আন্তর্জাতিক

কাতার থেকে আর কোনো প্রবাসীর লাশ বিনামূল্যে বহন করবে না বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনস।গত আগস্ট মাসে প্রবাসীদের লাশ পরিবহন বিষয়ে এমনই বিজ্ঞপ্তি দিয়েছে বিমান কর্তৃপক্ষ।১ সেপ্টেম্বর থেকে এই নিয়ম কার্যকর করেছে বিমান। এই তথ্য নিশ্চিত করে বিমানের কাতার শাখা পরিচালক রেজাউল আহসান গালফ বাংলাকে জানান, আমরা এ বিষয়ে দূতাবাসকে অবহিত করেছি।

ফলে এখন থেকে কাতার প্রবাসীর লাশ পরিবহনে বিমানকে দিতে হবে ৩ হাজার ৬০০ রিয়াল।সাধারণত কাতারের আইন অনুসারে কোনো বিদেশি কর্মীর মৃত্যু হলে তার লাশ দেশে পাঠানোর খরচ কোম্পানিকে বহন করতে হয়। কিন্তু কোনো ফ্রি ভিসায় থাকা কর্মী বা অবৈধ অবস্থায় থাকা কর্মীর মৃত্যু হলে তাঁর লাশ দেশে পাঠানোর সময় বিপাকে পড়তে হয়।

সেক্ষেত্রে দূতাবাস চিঠি দিলে বিমান এতোদিন বিনামূল্যে সেই লাশ বাংলাদেশে নিয়ে যেত। তবে এখন আর সেই সুযোগ পাবেন না কোনো অসহায় কাতার প্রবাসী।তবে এ বিষয়ে দূতাবাসের আনুষ্ঠানিক বক্তব্য জানতে চেষ্টা করছে গালফ বাংলা। এর আগে চলতি বছরের শুরুতে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মো. মহিবুল হক বলেছিলেন,

‘প্রতি বছর শতশত প্রবাসী বাংলাদেশির লাশ বিনা ভাড়ায় পরিবহন করে থাকে বিমান। মানবিক বিষয়গুলোতে বিমান সবসময়ই অগ্রাধিকার দেয়। কিন্তু আর কতদিন বিমান এভাবে করবে। তাদের তো একটা খরচ আছে। ন্যূনতম খরচটা তো তাদের পেতে হবে।’তিনি বলেছিলেন, ‘প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের তো প্রবাসীদের জন্য ফান্ড আছে। প্রবাসে কোনো বাংলাদেশি

মারা গেলে প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয় সেই ফান্ড থেকে লাশ পরিবহনের জন্য ন্যূনতম একটা ভাড়া বিমানকে দিতে পারে।’‘প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের কাছে আমরা শিগগিরই একটা চিঠি পাঠাব। লাশ পরিবহনের ক্ষেত্রে আমরা তাদের কাছে টাকা চাইব’,- তখন বলেছিলেন সিনিয়র সচিব মহিবুল হক।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *