গ্রিসের মাথাব্যথা বাড়িয়ে তুরস্কের বিরাট সামরিক মহড়া

আন্তর্জাতিক

গ্রিসের সঙ্গে চলমান উত্তেজনার মধ্যেই উত্তর সাইপ্রাসে বার্ষিক সামরিক মহড়া শুরু করল তুরস্ক। অন্যদিকে ফ্লান্স জানিয়েছে, ইইউ কাউন্সিলের বৈঠকে তুরস্কের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা জারি করা নিয়ে আলোচনা হতে পারে।রোববার থেকে শুরু হয়েছে উত্তর সাইপ্রাসে তুরস্কের বার্ষিক সামরিক মহড়া। সম্প্রতি গ্রিসের সঙ্গে তুরস্কের বিরোধের পরিপ্রেক্ষিতে এ মহড়া বাড়তি গুরুত্ব পাচ্ছে।

এর আগে শনিবারই তুরস্কের প্রেসিডেন্ট এরদোয়ান বলেছেন, ‘গ্রিস হয় রাজনীতি ও কূটনীতির ভাষা বুঝবে, না হয় তাদের মাটিতে বেদনাদায়ক অভিজ্ঞতার মুখে পড়তে হবে। তুরস্কের জনগণ সব ধরনের সম্ভাবনার জন্য তৈরি।’এদিকে তুরস্কের ভাইস প্রেসিডেন্ট বলেছেন, ‘আমাদের এবং টার্কিশ রিপাবলিক অফ নর্দার্ন সাইপ্রাসের সামরিক অগ্রাধিকার একই।’ তুরস্কের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ও জানিয়েছে, মহড়া সাফল্যের সঙ্গে চলছে।

এ পরিস্থিতিতে ইউরোপীয় কাউন্সিলের প্রেসিডেন্টকে ফোন করেন এরদোয়ান। তুরস্কের প্রেসিডেন্টের দাবি, ইইউ যেন নিরপেক্ষ মনোভাব দেখায়। আগামী ২৪-২৫ সেপ্টেম্বর ইইউ কাউন্সিলের বৈঠক। ফ্রান্স জানিয়ে দিয়েছে, সেখানে তুরস্কের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা নিয়ে আলোচনা হতে পারে।

পূর্ব ভূমধ্যসাগরে অপরিশোধিত তেল ও প্রাকৃতিক গ্যাস তোলা নিয়ে গ্রিস ও তুরস্কের মধ্যে বিরোধ ক্রমশ জটিল রূপ নিচ্ছে। তুরস্ক গত মাসে তেল ও গ্যাস খোঁজার জন্য একটি জলযান গ্রিস ও সাইপ্রাসের মধ্যবর্তী এলাকায় পাঠিয়ে দিয়েছে। তুরস্কের দাবি, ওই এলাকা তাদের জলসীমার ভিতর পড়ছে। এ নিয়ে প্রবল আপত্তি গ্রিসের।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *