নারী পাচারের সাথে সম্পর্কিত নিজের ম্যানেজার প্রসঙ্গে অবশেষে মুখ খুললেন অপু

জাতীয়

সম্প্রতি পুলিশের তদন্তকারী বিভাগ সিআইডির হাতে গ্রেফতার হয়েছেন দেশের পরিচিত নৃত্য শিক্ষক এবং কোরিওগ্রাফার ইভান শাহরিয়ার সোহাগ। নারী পাচার চক্রের সাথে জড়িত থাকার অভিযোগেই মূলত তাকে গ্রেফতার করা হয়। নানা অনুষ্ঠানের কথা বলে দুবাইয়ে নারী পাচারের কাজ করতেন সোহাগ এমনটা নিজেও স্বীকার করেছেন জিজ্ঞাসাবাদে। পাশাপাশি এই চক্রের সাথে জড়িত আরও বেশ কয়েকজনের নামও উঠে এসেছে।

নারী পাচার চক্রের সাথে জড়িত বলে অভিযোগ উঠে আরেক কোরিওগ্রাফার গৌতম সাহারও। তবে গৌতমের নাম আসার পর নতুন করে বিতর্কের মুখে পড়েন ঢালিউড তারকা অপু বিশ্বাস। বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদনে জানানো হয় গৌতম অপু বিশ্বাসের ম্যানেজার। ফলে নারী পাচার চক্রের সাথে অপুর জড়িত থাকার গুঞ্জন উঠে নতুন করে। এবার সেই গুঞ্জন নিয়ে মুখ খুলেছেন অপু বিশ্বাস নিজেই।

রোববার (১৩ সেপ্টেম্বর) অপু বিশ্বাস তার সত্যায়িত ফেসবুক পেইজে একটি স্ট্যাটাসের মাধ্যমে জানান গৌতমের সাথে তার কোনো সম্পর্ক নেই, এমনকি তিনি অপুর ম্যানেজারও নন। অপু তার স্ট্যাটাসে লেখেন, “আমি একজন অভিনেত্রী হিসেবে মিডিয়াতে কমবেশি সবার সঙ্গে কাজের জন্য যোগাযোগ করতে হয়।আরেকটা কথা ক্লিয়ার ভাবে বলতে চাই আমার কোন ব্যক্তিগত মিডিয়া ম্যানেজার নেই, পরিচিতজনের মাধ্যমে বিভিন্ন কাজের মিটিং বা কাজের প্রপোজাল পাই।

আজকে কিছু নিউজে দেখছি যে ‘অপু বিশ্বাসের ম্যানেজার’ এভাবে কিছু নিউজ এর শিরোনাম দেয়া হচ্ছে। আপনাদের কাছে অনুরোধ এইসব নিউজে আমার নাম জড়িয়ে আমাকে বিব্রত করবেন না।আমি আবারও ক্লিয়ার করে বলতে চাই- আমার ব্যক্তিগত কোনো মিডিয়া ম্যানেজার নেই।যে নিউজটি আপনারা অলরেডি করেছেন আমার নাম জড়িয়ে, তারা দয়া করে কারেকশন করুন নতুবা আমি সাইবার ক্রাইম ডিভিশনে লিখিত অভিযোগ দিব। ধন্যবাদ।
– অপু বিশ্বাস

অন্যদিকে কোরিওগ্রাফার গৌতমের বিরুদ্ধে নারী পাচার চক্রের সাথে জড়িত থাকার অভিযোগ সম্পর্কে নিজের অবস্থান পরিষ্কার করেছেন তিনিও। গৌতম লেখেন, “সকালে একটা খবর দেখে অবাক হয়েছি। আমি বাংলাদেশের সব আর্টিস্টদের সাথে কাজ করছি। কাজের ক্ষেত্রে ইভান শাহরিয়ার সোহাগকে চিনি। কাজের সূত্র ধরে কয়েকবার দেখাও হয়েছে। কাজের বাইরে কখনো দেখা বা কথা হয়নি। আর একটি গণমাধ্যমে যে সংবাদ এসেছে সেটি একেবারে ভিত্তিহীন। আমি দুবাইয়ে কোনো নৃত্যশিল্পীকে পাঠাইনি। আমি কোনো নৃত্য কোরিওগ্রাফারও নই। আমি যতবার বিদেশ গেছি, তা রেকর্ড রয়েছে।

দুবাইয়ে আমি কোনো শো করিও নাই কখনও। আরেকটি কথা, আমি কারো ম্যানেজার নই। সবার কাছে অনুরোধ থাকবে আমার নাম জড়িয়ে আমাকে বিব্রত করবেন না। – গৌতম সাহা প্রসঙ্গত, সিআইডির তরফ থেকে জানানো হয়েছে, দুবাই পুলিশের দেয়া তথ্যমতে আজম খান সহ পাঁচজনকে গ্রেফতার করলে সেখান থেকেই উঠে আসে সোহাগের নাম।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *