বাংলাদেশকে বিনামূল্যে লক্ষাধিক করোনা ভ্যাকসিন দেবে চীন

জাতীয়

প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের ভ্যাকসিন বাংলাদেশে ১ লাখের বেশি ডোজ ভ্যাকসিন বিনামূল্যে সরবরাহ করবে চীন। আজ শুক্রবার (১১ সেপ্টেম্বর) মার্কিন গণমাধ্যম নিউইয়র্ক টাইমসের প্রতিবেদন থেকে এই তথ্য জানা গেছে।টাইমসের বেইজিং ব্যুরোর প্রতিনিধি সুই-লি উই তার প্রতিবেদনে বলেছেন, বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকায় ৪ হাজার ২০০

স্বাস্থ্যকর্মীকে নিয়ে ট্রায়াল চালাবে চীনের সিনোভ্যাক বায়োটেক কোম্পানি।আন্তর্জাতিক উদরাময় গবেষণা কেন্দ্র, বাংলাদেশের (আইসিডিডিআরবি) নির্বাহী পরিচালক জন ডি ক্লেমেন্সকে উদ্ধৃত করে উই লিখেছেন, ‘চীনা কোম্পানিটি বাংলাদেশকে ১ লাখ ১০ হাজার ফ্রি ভ্যাকসিন ডোজ দিতে রাজি হয়েছে।’তবে এই পরিমাণকে বাংলাদেশের জনগণের জন্য ‘খুবই কম’ বলে মন্তব্য করা হয়েছে প্রতিবেদনে।

এশিয়া থেকে আফ্রিকা পর্যন্ত ভ্যাকসিনের মাধ্যমে চীন কীভাবে বন্ধুত্ব বাড়াতে চাইছে প্রতিবেদনটিতে সে বিষয়ে বিস্তারিত ধারণা দেয়া হয়েছে।চীনের চারটি ভ্যাকসিন তৃতীয় ধাপের ট্রায়ালে আছে। পৃথিবীর অন্য কোনো দেশ এত ভ্যাকসিন তৃতীয় ধাপের ট্রায়ালে নিতে পারেনি।বাংলাদেশ সরকার ইতিমধ্যে সিনোভ্যাকের ভ্যাকসিনের ট্রায়ালের অনুমতি দিয়েছে আইসিডিডিআরবি’কে। সংস্থাটি কয়েক দিন ধরে বলে আসছে, খুব দ্রুত আনুষ্ঠানিকভাবে ট্রায়াল শুরু হবে।

আরও পড়ুন=প্রিয় বন্ধুকে ধার হিসেবে দিয়েছিলেন বিপুল অংক। তবে সেই অর্থ আর ফেরত দেননা সেই বন্ধু। অর্থ আদায়ে এবার তাই আইনি লড়াইয়ে নেমেছেন সাবেক ভারতীয় স্পিনার হরভজন সিং। বিপদের দিনে বন্ধুকে ৪ কোটি রূপি ধার দিয়েছিলেন ভাজ্জি। তবে দুঃসময়ে সাহায্য করা সেই অর্থ নাকি বার বার চেয়েও ফেরত পাননি ভাজ্জি। তাই তার নামে প্রতারণার মামলা ঠুকে দিয়েছেন তিনি। হরভজনের মামলার পরিপ্রেক্ষিতে ঘটনা তদন্ত করতে নেমেও পড়েছে স্থানীয় পুলিশ।

গত মাসে ২৫ লাখ টাকার একটি চেক নাকি পরিশোধ করেছিল সেই বন্ধুটি। কিন্তু সেখানে বন্ধুর চালাকি। চেক নিয়ে ব্যাংকে গিয়ে দেখেন সেই পরিমাণ অর্থ নেই ব্যাংকে। তাতেই চটেছেন ভাজ্জি। এরমধ্যে এবারের আইপিএল থেকে নাম প্রত্যাহার করে নিয়েছেন হরভজরুচেন্নাই সুপার কিংসের হয়ে খেললে সেখানেও পেতেন ২ কোটি রুপী। এমনিতেই করোনার কারণে আর্থিক সংকট সর্বত্র, তারমধ্যে আবার খেলছেননা আইপিএল। এখন প্রিয় বন্ধুও যদি প্রতারণা করে তাহলে আর কিই বা করার থাকে!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *