মাদরাসা পুড়ে ছাই, নামাজে থাকায় বেঁচে গেল ৫০ জন এতিম শিক্ষার্থী

বৃহস্পতিবার (২৬ ডিসেম্বর) বিকেলের দিকে পার্বত্য খাগড়াছড়ির মাটিরাঙ্গা উপজেলায় অগ্নিকাণ্ডে পুড়ে গেছে হাফিজিয়া মাদরাসা ও এতিমখানার আবাসিক শিক্ষার্থীদের বই-খাতা ও পোশাকসহ প্রয়োজনীয় সবকিছুই। তবে নামজে থাকার কারনে বেঁচে গেছে ৫০ জন এতিম শিক্ষার্থী।আগুন লাগার পরপরই ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসীর সহায়তায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়। ততক্ষণে পুড়ে ছাই হয়ে যায় ছাত্রদের বই-খাতা, কাপড়,

বেডিং, ট্রাংক ও আসবাবপত্রসহ সবকিছু।বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে বলে জানিয়েছে মাটিরাঙ্গা ফায়ার সার্ভিস ইউনিটের স্টেশন অফিসার মো. সাদেকুর রহমান।এই বিষয়ে মাদরাসা ও এতিমখানার পরিচালক হাফেজ মো. নেছার উদ্দিন জানান, মাদরাসার শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা আসরের নামাজ পড়তে

মাদরাসা মসজিদে গেলে হঠাৎ করে আবাসিক ভবনে আগুনের সূত্রপাত হয়। কোনো কিছু বুঝে ওঠার আগেই মুহূর্তের মধ্যেই আগুনের লেলিহান শিখা ভবনজুড়ে ছড়িয়ে পড়ে।এদিকে, শিক্ষার্থীদের পাঠ্য বইয়ের ব্যবস্থা করার আশ্বাস প্রদান করে মাটিরাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) বিভীষণ কান্তি দাশ শিক্ষার্থীদের জন্য প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল থেকে বরাদ্দ পাওয়া ৬০টি কম্বল প্রদান করেন।

আরও পড়ুন=ঢাকাই চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় জুটি মনোয়ার হোসেন ডিপজল ও মৃদুলা আহমেদ রেসি। ‘এক জবান’, ‘বাজারের কুলি’সহ মোট ১৩টি চলচ্চিত্রে জুটি বেঁধেছেন তারা। একটা সময় তাদের ঘিরে চলচ্চিত্র পাড়ায় রটে প্রেমের গুঞ্জন। শোনা যেতো, তারা নাকি চুটিয়ে প্রেম করেছেন। প্রেমের বিষয়টি নিয়ে এবার মুখ খুললেন এই অভিনেত্রী।রেসি বলেন, ‘একসঙ্গে অনেকগুলো ছবি করায় তার (ডিপজল) সঙ্গে ভালো বন্ধুত্ব হয়ে গিয়েছিল। সেই বন্ধুত্বটা আজও অটুট

আছে।’তিনি আরও বলেন, ‘চলচ্চিত্র পাড়ায় হিট জুটিদের নিয়ে সবসময়ই প্রেমের গুঞ্জন ছিল। ভালোবাসা অনেক রকম থাকে, প্রেম নয়। মা-বাবা, ভাই-বোনদের মধ্যে আমার যেরকম ভালোবাসা থাকে, তেমনই সহশিল্পীদের মধ্যেও ভালোবাসা থাকে। আমাদের মধ্যে যে সম্পর্ক এটা আমাদের পরিবারের সবাই জানে। মানুষের এই কথাগুলো আমরা উপভোগ করি।’এদিকে, রেসি বর্তমানে ডিপজলের বাড়িতে ‘ইয়েস ম্যাডাম’ চলচ্চিত্রের শুটিং করছেন। এটি পরিচালনা করছেন রকিবুল আলম রকিব।

Leave a Comment