শুক্র-শনিবার বিশেষ কারণে খোলা থাকবে ব্যাংক

ঢাকা উত্তর এবং দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন উপলক্ষে আগামী শুক্র (২৭ ডিসেম্বর) ও শনিবার (২৮ ডিসেম্বর) ঢাকা মহানগর এলাকায় সব তফসিলি ব্যাংক খোলা রাখার নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।বৃহস্পতিবার (২৬ ডিসেম্বর) বাংলাদেশ ব্যাংকের ডিপার্টমেন্ট অব অফ-সাইট সুপারভিশন থেকে প্রকাশিত এক সার্কুলার মাধ্যমে এ তথ্য জানানো হয়।বাংলাদেশ ব্যাংক জানিয়েছে, জামানতের অর্থ জমা দেয়ার সুবিধার্থে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছ।

বাংলাদেশে কার্যরত সকল তফসিলি ব্যাংকের প্রধান নির্বাহীদের কাছে পাঠানো সার্কুলারে বলা হয়, ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচন উপলক্ষে মনোনয়নপত্র দাখিলকারীদের মনোনয়নপত্র দাখিলের সুবিধার্থে আগামী ২৭ ও ২৮ ডিসেম্বর (শুক্র ও শনিবার) ঢাকা মহানগরীর সকল সফসিলি ব্যাংকে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা নিশ্চিতপূর্বক খোলা রাখার নির্দেশ দেয়া হলো।রোববার (২২ ডিসেম্বর) নির্বাচন কমিশন ঢাকার দুই সিটির তফসিল ঘোষণা করে। তফসিল অনুযায়ী, ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচন ৩০ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে। মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার শেষ দিন ৩১ ডিসেম্বর।

মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই ২ জানুয়ারি, প্রত্যাহারের শেষ দিন ৯ জানুয়ারি।বিদ্যমান ভোটার তালিকা দিয়েই ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটিতে ভোট হবে। সম্প্রতি দুই সিটির সম্প্রসারিত ১৮টি করে মোট ৩৬টি ওয়ার্ডের সংরক্ষিতসহ ৪৮ জন কাউন্সিলর জানুয়ারিতে নির্বাচন না করতে কমিশনে আবেদন করেছিলেন। তাদের আসনে নির্বাচন করলে উচ্চ আদালতে যাবেন বলে তারা হুমকিও দেন। তবে ইসির নির্ধারিত সময়ে ওইসব ওয়ার্ডেও নির্বাচন হবে।ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণে ভাগ হওয়ার পর ২০১৫ সালের এপ্রিলে দুই সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।

নির্বাচনের পর ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের প্রথম সভা হয় ওই বছরের ১৪ মে, দক্ষিণ সিটিতে ১৭ মে। এ হিসাবে ঢাকা উত্তরের মেয়াদ শেষ হবে ২০২০ সালের ১৩ মে আর দক্ষিণে একই বছরের ১৬ মে।ঢাকা উত্তর সিটিতে ভোটার সংখ্যা ৩০ লাখ ৩৫ হাজার ৬২১। সাধারণ ওয়ার্ড ৫৪টি এবং সংরক্ষিত ১৮টি। সম্ভাব্য ভোটকেন্দ্রের সংখ্যা ১ হাজার ৩৪৯টি এবং ভোটকক্ষ ৭ হাজার ৫১৬টি।ঢাকা দক্ষিণ সিটিতে ভোটার সংখ্যা ২৩ লাখ ৬৭ হাজার ৪৮৮। সাধারণ ওয়ার্ড ৭৫টি এবং সংরক্ষিত ২৫টি। সম্ভাব্য ভোটকেন্দ্র ১ হাজার ১২৪টি এবং ভোটকক্ষ ৫ হাজার ৯৯৮টি।

Leave a Comment