সরকারকে বেকায়দায় ফেলতে বিএনপি-জামায়াত মরিয়া

Food Lifestyle

চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেছেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন আওয়ামী লীগ সরকারের ঈর্ষণীয় উন্নয়ন অগ্রগতি জনগণের কাছে প্রশ্নবিদ্ধ করে তুলতে বিএনপি-জামায়াত চক্র মরিয়া হয়ে উঠেছে। মীমাংসিত কিছু ইস্যু সামনে রেখে তারা নানা অপতৎপরতা চালানোর চেষ্টা চালাচ্ছে।’

সোমবার (১২ অক্টোবর) ৮নং শুল্কবহর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের আওতাধীন ‘এ’ ,‘বি’ ও ‘সি’ ইউনিট আওয়ামী লীগের কার্যকর কমিটির পৃথক সভায় প্রধান বক্তার বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।নাছির বলেন, ‘দেশের ভাবমূর্তি বিনষ্টের পাঁয়তারা চলছে। এমন অবস্থায় আমাদের দলের নেতাকর্মীকে সজাগ দৃষ্টি রাখতে হবে। তাদের সব ধরনের অপচেষ্টা, অপতৎপরতা রুখে দিতে আওয়ামী লীগের তৃণমূল শক্তিই প্রধান ভিত্তি।

সেই তৃণমূল শক্তিকে সক্রিয় ও শক্তিশালী করার লক্ষ্যে চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগ প্রত্যেকটি ইউনিটে কার্যকর কমিটির সভা করছে। দলের তৃণমূলের প্রকৃত অবস্থা পর্যবেক্ষণ ও করণীয় নির্ধারণের মাধ্যমে সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নই এই কার্যকর সভার উদ্দেশ্য।’সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী।

প্রধান আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এম রেজাউল করিম চৌধুরী।মহানগর আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা শফর আলী, সাংগঠনিক সম্পাদক চৌধুরী হাসান মাহমুদ, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক মোহাম্মদ হোসেন, সাংস্কৃতিক সম্পাদক আবু তাহের, যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক দিদারুল আলম, উপপ্রচার সম্পাদক শহীদুল আলম, কার্যনির্বাহী সদস্য সাইফুদ্দিন খালেদ বাহার, শুল্কবহর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি আতিকুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক শেখ সোহরাওয়ার্দী এতে বক্তব্য রাখেন।

স্থায়ী সমাধান না করা পর্যন্ত কোনো ঝুলন্ত ক্যাবল অপসারণ না করাসহ ৫ দফা দাবি জানিয়েছে ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (আইএসপিএবি) এবং ক্যাবল অপারেটরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (কোয়াব)।তাদের দাবি যদি আগামী ১৭ অক্টোবরের মধ্যে সমাধান করা না হয়, তবে আগামী ১৮ অক্টোবর থেকে প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত সারা দেশে বাসা-বাড়ি, অফিস ও ব্যাংকসহ সকল পর্যায়ে ইন্টারনেট ডাটা কানেক্টিভিটি এবং ক্যাবল টিভি বন্ধ রাখার হুঁশিয়ারি দেন নেতারা।

সোমবার (১২ অক্টোবর) জাতীয় প্রেস ক্লাবের তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া হলে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলন থেকে এসব দাবি জানানো হয়।সংবাদ সম্মেলনে নেতারা বলেন, যোগাযোগ-প্রযুক্তি ছাড়াও বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে শিক্ষা ও চিকিৎসা, ব্যবসা-বাণিজ্যসহ বেশকিছু গুরুত্বপূর্ণ খাতে ইন্টারনেট কার্যকরী ভূমিকা রাখছে। একইসঙ্গে করোনা পরিস্থিতিতে সারাদেশে টেলিভিশন দর্শকদের দেশ-বিদেশের টিভি চ্যানেলের মাধ্যমে সরকারের উন্নয়ন কর্মকাণ্ডসহ সংবাদ, বিনোদন, শিক্ষার মতো গুরুত্বপূর্ণ অনুষ্ঠান দেখার সুযোগ করে দিয়েছে ক্যাবল অপারেটরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (কোয়াব)। এক কথায় বললে, দেশের সার্বিক উন্নয়নে প্রায় সবগুলো খাতে বিশেষ করে ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ’ গড়তে আইএসপিএবি এবং কোয়াব বিশেষ ভূমিকা পালন করে আসছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *