সরকারি চাকরি প্রত্যাশীদের দারুণ জন্য সুখবর

জাতীয়

সরকারি চাকরি প্রত্যাশীদের সুখবর দিয়েছে সরকার। চলতি বছরের ২৫ মার্চ যাদের বয়স ৩০ বছরের মধ্যে থাকবে তারা চাকরিতে আবেদন করতে পারবেন। জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন এসব তথ্য জানিয়েছেন। করোনাভাইরাসের কারণে চলতি বছরের শুরুতে সরকারি চাকরির তেমন কোনো বিজ্ঞপ্তিই দেয়া হয়নি। ২৫ মার্চ থেকে সাধারণ ছুটি ঘোষণার পর তা একেবারেই বন্ধ হয়ে যায়। এ নিয়ে অনেকটাই হতাশায় পড়েছিলেন চাকরি প্রার্থীরা।

এরই মধ্যে অনেকেরই ৩০ বছর পার হয়েছে। করোনাকালকে বিবেচনা করে তাদের অনেকেই দাবি জানিয়েছিলেন, বয়সের বিষয়টি মাথায় রেখে পরের বিজ্ঞপ্তিগুলো প্রকাশের জন্য। এ বিষয়ে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন জানান, চলতি বছরের ২৫ মার্চ যাদের বয়স ৩০ বছরের মধ্যে থাকবে তারা চাকরিতে আবেদন করতে পারবেন এই বিষয়টি আমরা উল্লেখ করে দেবো। তবে, এই সিদ্ধান্ত কেবল যেসব বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ স্থগিত করা হয়েছিল সেগুলোর ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে বলে জানিয়েছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়।

আরও পড়ুন= ক্রিকেট পাগল জাতির তালিকা করলে বাংলাদেশের নাম শীর্ষেই থাকার কথা। ক্রিকেট এখানে কেবল একটি খেলা নয়; বরং তুমুল আবেগের জায়গা। বাংলাদেশে ক্রিকেট হলো ভালোবাসার আরেক নাম, লাল-সবুজ পতাকার সবচেয়ে বড় ব্র্যান্ড। সম্প্রতি এই সত্যের এক বড় উদাহরণ হয়ে এসেছে এক মা ও তার ছেলের ক্রিকেট খেলার কয়েকটি অনিন্দ্য সুন্দর ছবি, যা বিখ্যাত বানিয়ে দিয়েছে তাদের।

গেল শুক্রবার (১১ সেপ্টেম্বর) ফেসবুকে ভাইরাল হওয়া ছবিতে দেখা যাচ্ছে, পাঞ্জাবি পায়জামা পরিহিত শিশু ছেলেটি বল নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে। অপর প্রান্তে বোরকা পরিহিত মা ব্যাট করছে। পত্রিকার একজন ফটোগ্রাফারের ক্যামেরায় এমন দৃশ্য ধরা পড়েছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের কল্যাণে মুহূর্তেই তা ভাইরাল হয়ে যায়। মাদরাসা ছাত্র শেখ ইয়ামিন সিনান (১১) কবি নজরুল ক্রিকেট একাডেমিতে প্রশিক্ষণ নিতে আসে। শুক্রবারও সিনানকে ক্রিকেট প্রশিক্ষণের ক্লাসে নিয়ে এসেছিলেন মা ঝরনা আক্তার। কিন্তু তখনও বন্ধুরা কিংবা প্রশিক্ষক আসেননি। তাই ক্রিকেটপাগল শিশু সিনান মাকে নিয়েই নেট প্র্যাকটিস শুরু করে। বোরখা পরিহিতা মা ঝরনা আক্তারকে ব্যাটিংয়ে পাঠিয়ে কিছুক্ষণ বোলিং করে সে। শিশু সিনানের ছুঁড়ে দেওয়া বলের ঘূর্ণিতে ব্যাটসম্যান ঝরনা আক্তার পরাস্ত হলে সাকিব আল হাসানের মতোই উচ্ছ্বাসে ফেটে পড়ে সে। আর এই ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হওয়ায় দেশজুড়ে হৈ চৈ পড়ে যায়।

ভাইরাল এ ছবিটি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে কাজী ইকরামুল হক নামে একজন লিখেছেন- ‘যারা পর্দাকে এগিয়ে যাওয়ার পথে প্রতিবন্ধকতা মনে করেন, সেই সব বিকৃত মস্তিষ্কের মানুষের জন্য এটা একটি দৃষ্টান্ত হতে পারে।’ জাহেদ আহমেদ চৌধুরী নামের একজন লিখেছেন, ‘এটা এ বছরের সবচেয়ে সেরা ছবি।’

মা-ছেলের সুন্দর এই মুহূর্তের ছবি শেয়ার করে অনেকেই লিখেছেন, একজন নারী যে সব পারে এই ছবিই সেটি প্রমাণ করে। সন্তানের স্বপ্ন পূরণে নিজেই মাঠে নেমেছেন। এমন মায়ের প্রতি শ্রদ্ধায় মাতা নত হয়ে আসে। উল্লেখ্য, বোরকাপরা নারী ঝরনা আক্তার এক সময়কার সফল অ্যাথলেট। তার ১১ বছরের ছেলের নাম শেখ ইয়ামিন আরামবাগের একটি মাদরাসার চতুর্থ শ্রেণীর শিক্ষার্থী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *