সাদা কাগজে স্বা-ক্ষর নিয়ে দী-র্ঘ ৩ বছর ত-রুণীকে ধ-র্ষণ করলেন চেয়ারম্যান

জাতীয়

ঝা-লকাঠির কাঁ-ঠালিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান এমদাদুল হক মনিরের বিরু-দ্ধে ধ-র্ষণ মামলা করে এলাকা ছাড়া হয়েছেন ভু-ক্তভো-গী ত-রুণী। স্ত্রী পরিচয়ে প্রায় তিন বছর ধরে ওই ত-রুণীকে ধ-র্ষণ করেন চেয়ার-ম্যান মনির।রোববার দুপুরে বরিশাল প্রে-স ক্লা-বে সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন ওই ত-রুণী। এ সময় স্বা-ভাবিক-ভাবে জী-বনযাপন করার আ-কুতি জানান তিনি।সংবাদ সম্মে-লনে লিখিত ব-ক্তব্যে ভু-

ক্তভো-গী ত-রুণী জানান, ২৫ আগস্ট বরিশাল বিভাগীয় নারী ও শি-শু নি-র্যাতন অপরাধ দমন ট্রা-ইব্যু-নালে চে-য়ারম্যা-ন মনিরের বি-রু-দ্ধে ধ-র্ষণ মামলা করেন তিনি। এরপর থেকে প্র-ধান আসামি মনির ও তার সহযো-গীরা তাকে এসিড ছু-ড়ে ঝলসে দেয়াসহ অপহরণ করে লা-শ

গু-ম এবং বাড়িঘরে আ-গুন দেয়ার হু-মকি দিচ্ছেন। এমনকি মা-মলার সা-ক্ষী-দেরও হ-ত্যাসহ নানা হু-মকি দেয়া হচ্ছে।তিনি আরো জানান, ২০১৭ সালে চাকরি চাইতে কাঁ-ঠালিয়ার তৎ-কালীন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান (বর্ত-মানে চেয়ারম্যান) এমদাদুল হক মনিরের কাছে যান তিনি। চাকরির তদবিরের কথা বলে একই বছরের ৩ এপ্রিল তাকে বরিশাল নগরীর আগরপুর রোডে বন্ধু মিঠু সিকদারের বাসায় নিয়ে ধ-র্ষণ করা

হয়। ওই দিনই এক কাজি ডেকে বিয়ে করার কথা বলে বিভিন্ন সাদা কাগজে তার স্বা-ক্ষর নেন চেয়ারম্যান।এরপর থেকে প্রায় তিন বছর ধরে স্ত্রী পরিচয়ে নিজের বাড়ি কাঁঠালিয়ার আমুয়া বাজারে পাঁ-চতলা ভবনে নিয়ে মেলামেশা করেন মনির। এছাড়া বরিশাল নগরীতে ব-ন্ধু মিঠু

সিকদারের বাসা এবং ঢাকার ল-ঞ্চের কেবিনে নিয়ে একা-ধিকবার মেলা-মেশা করে-ন। একপ-র্যায়ে বিয়ের কাগজপত্র চাইলে টালবাহানা শু-রু করেন মনির। এছাড়া বিয়ে হয়নি বলেও জানান তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *