স্বামীকে তালাক দিয়ে ফেসবুক প্রেমিকের বাড়িতে নববধূর অনশন!

জাতীয়

ময়মনসিংহের তারাকান্দায় বিয়ের দা’বিতে প্রেমিকের বাড়িতে অ’নশন করছেন এক কলেজছাত্রী।জানা যায়, উপজে’লার কামারগাঁও ইউনিয়নের ভেরুয়া গ্রামের আবুচানের ছেলে প্রেমিক সাদ্দাম হোসেনের বাড়িতে গত রোববার (৬ সেপ্টেম্বর) দুপুর থেকে অ’নশন শুরু করছেন ওই ছাত্রী।বিয়ের দা’বিতে অ’নশনে বসা তরুণী তারাকান্দা বঙ্গবন্ধু ডিগ্রি কলেজের ডিগ্রি প্রথম বর্ষের ছাত্রী। মঙ্গলবার (৮ সেপ্টেম্বর) অনশনে থাকা ওই শিক্ষার্থী জানান,তিন বছর ধরে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে পরিচয় হয় সাদ্দামের সাথে। মোবাইলের মাধ্যমেই তার সাথে কথাবার্তার এক পর্যায়ে গভীর সম্পর্ক প্রেমে পরিণত হয়।ওই শিক্ষার্থী বলেন,

হ’ঠাৎ আমার পরিবার অন্য জায়গায় বিয়ে দেন আমার ইচ্ছার বি’রুদ্ধে। এতে সাদ্দাম আরো বেপরোয়া হয়ে ওঠেন।মোবাইলে কান্নাকা’টি করে সাদ্দাম আমাকে একদিনও সংসার করতে দেয়নি। তার কথায় ওই স্বামীকে তালাক দিতে বা’ধ্য হই।গত কয়েক মাস ধরে তার সাথে বেশ কয়েকবার শারীরিক সম্পর্ক হয়েছে আমার। হঠাৎ সাদ্দাম আমার সাথে যোগাযোগ বি’চ্ছিন্ন করে দেয়।পরিবারের অজুহাত দেখিয়ে অন্যত্র বিয়ে করার পাঁয়তারা করে এবং আমাকে এড়িয়ে চলে। তাকে বিয়ে না করতে পারলে আমার জী’বনটা শে’ষ হয়ে যাবে।এ অবস্থায় বেঁ’চে থাকাটাই ক’ষ্ট। নিজ পরিবার থেকে বি’চ্ছিন্ন হওয়ার পথে তিনি। বিয়ে করা স্বামীকেও ছাড়তে হয়েছে। শুধুমাত্র সাদ্দামের কারণে।

তবে অ’নশনরত বাড়িতে প্রেমিক সাদ্দামের পরিবারের লোকজনকে পাওয়া যায়নি। স্থানীয়রা জানান, মেয়েটির অ’নশনের কথা শুনে বাড়ির লোকজন পালিয়েছে।এদিকে মেয়েটির পরিবার জানায়, লেখাপড়া করা অবস্থায় তাকে অন্যত্র বিয়ে দিলেও সাদ্দাম মেয়েটিকে সংসার করতে দেয়নি।এ বিষয়ে তারাকান্দা থা’নার ওসি আবুল খায়ের জানান, ভিকটিমকে ওই বাড়ি থেকে রাতে উ’দ্ধার করা হয়েছে।ভু’ক্তভো’গী পরিবারের বাড়ি ফুলপুর থাকায় মেয়েটিকে ফুলপুর থা’নায়

পাঠানো হয়েছে।ময়মনসিংহের তারাকান্দায় বিয়ের দা’বিতে প্রেমিকের বাড়িতে অ’নশন করছেন এক কলেজছাত্রী।জানা যায়, উপজে’লার কামারগাঁও ইউনিয়নের ভেরুয়া গ্রামের আবুচানের ছেলে প্রেমিক সাদ্দাম হোসেনের বাড়িতে গত রোববার (৬ সেপ্টেম্বর) দুপুর থেকে অ’নশন শুরু করছেন ওই ছাত্রী।বিয়ের দা’বিতে অ’নশনে বসা তরুণী তারাকান্দা বঙ্গবন্ধু ডিগ্রি কলেজের ডিগ্রি প্রথম বর্ষের ছাত্রী। মঙ্গলবার (৮ সেপ্টেম্বর) অনশনে থাকা ওই শিক্ষার্থী জানান,তিন বছর ধরে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে পরিচয় হয় সাদ্দামের সাথে। মোবাইলের মাধ্যমেই তার সাথে কথাবার্তার

এক পর্যায়ে গভীর সম্পর্ক প্রেমে পরিণত হয়।ওই শিক্ষার্থী বলেন, হ’ঠাৎ আমার পরিবার অন্য জায়গায় বিয়ে দেন আমার ইচ্ছার বি’রুদ্ধে। এতে সাদ্দাম আরো বেপরোয়া হয়ে ওঠেন।মোবাইলে কান্নাকা’টি করে সাদ্দাম আমাকে একদিনও সংসার করতে দেয়নি। তার কথায় ওই স্বামীকে তালাক দিতে বা’ধ্য হই।গত কয়েক মাস ধরে তার সাথে বেশ কয়েকবার শারীরিক সম্পর্ক হয়েছে আমার। হঠাৎ সাদ্দাম আমার সাথে যোগাযোগ বি’চ্ছিন্ন করে দেয়।পরিবারের অজুহাত দেখিয়ে অন্যত্র বিয়ে করার পাঁয়তারা করে এবং আমাকে এড়িয়ে চলে। তাকে বিয়ে না করতে পারলে আমার জী’বনটা শে’ষ হয়ে যাবে।এ অবস্থায় বেঁ’চে থাকাটাই ক’ষ্ট।

নিজ পরিবার থেকে বি’চ্ছিন্ন হওয়ার পথে তিনি। বিয়ে করা স্বামীকেও ছাড়তে হয়েছে। শুধুমাত্র সাদ্দামের কারণে।তবে অ’নশনরত বাড়িতে প্রেমিক সাদ্দামের পরিবারের লোকজনকে পাওয়া যায়নি। স্থানীয়রা জানান, মেয়েটির অ’নশনের কথা শুনে বাড়ির লোকজন পালিয়েছে।এদিকে মেয়েটির পরিবার জানায়, লেখাপড়া করা অবস্থায় তাকে অন্যত্র বিয়ে দিলেও সাদ্দাম মেয়েটিকে সংসার করতে দেয়নি।এ বিষয়ে তারাকান্দা থা’নার ওসি আবুল খায়ের জানান, ভিকটিমকে ওই বাড়ি থেকে রাতে উ’দ্ধার করা হয়েছে।ভু’ক্তভো’গী পরিবারের বাড়ি ফুলপুর থাকায় মেয়েটিকে ফুলপুর থা’নায় পাঠানো হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *